বরিশালে পলিটেকনিক শিক্ষক-কর্মচারীরা কর্মবিরতিতে

আগস্ট ০১ ২০১৯, ১৬:৩৫

বরিশাল সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে দ্বিতীয় শিফটে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীদের সম্মানী ভাতা মূল বেতনের ১০০ শতাংশ হারে পর্যায়ক্রমে উন্নীতকরণের লক্ষ্যে লাগাতার কর্মবিরতি পালন শুরু করেছেন ইনস্টিটিউটের শিক্ষক ও কর্মচারীরা।

বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) দুপুর ২টায় বরিশাল সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের প্রশাসনিক ভবনের সামনে শিক্ষক ও কর্মচারীদের অংশগ্রহণে কর্মবিরতি পালন কর্মসূচি শুরু হয়।

কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, দ্বিতীয় শিফটের ভাতা সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনে কর্তৃপক্ষ বারবার আশ্বাস দেওয়া সত্ত্বেও অদ্যাবধি সম্মানজনক কোনো সমাধান হয়নি। ২০১৮ সালের জুন অবদি ভাতা পেলেও জুলাইয়ের ১৮ তারিখ থেকে আমরা দ্বিতীয় শিফটের ভাতা পাচ্ছি না। আমাদের সঙ্গে অবিচার করা হচ্ছে। দ্বিতীয় শিফটে কর্মরত শিক্ষক ও কর্মচারীদের ২০১৫ সালের জাতীয় বেতন স্কেল অনুযায়ী মূল বেতনের ৫০ শতাংশ হারে চলমান দ্বিতীয় শিফট ভাতা চালু এবং অনতিবিলম্বে দ্বিতীয় শিফটে সম্মানী ভাতা মূল বেতনের ১০০ শতাংশ হারে পর্যায়ক্রমে উন্নীতকরণ করতে হবে।

‘এ লক্ষ্যেই আজ আমরা সরকারি বরিশাল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের সব শিক্ষক ও কর্মচারীরা লাগাতার কর্মবিরতি পালন শুরু করেছি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা এ কর্মবিরতি চালিয়ে যাব।’

বক্তারা আরও বলেন, চলমান এই সংকট সমাধান না হওয়া পর্যন্ত দ্বিতীয় শিফটের সব ধরনের ক্লাস, রুটিন তৈরিসহ অন্যান্য অফিস কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। একইসঙ্গে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন দুপুর ১টা ১৫ মিনিট থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা একত্রিত হয়ে ব্যানারসহ ইনস্টিটিউট ক্যাম্পাসে অবস্থান করবে।

কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ পলিটেকনিক শিক্ষক পরিষদ (বাপশিপ) বরিশাল শাখার সভাপতি মো. ইউসুফ আলী, বাংলাদেশ পলিটেকনিক শিক্ষক সমিতি (বাপশিস) বরিশাল শাখার সভাপতি মো. রেজাউল বাহার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর ও অধিদপ্তরাধীন কর্মকর্তা-কর্মচারী সমিতি (বাকাশিঅকস) বরিশাল শাখার সাধারণ সম্পাদক মিসবাহুল কামাল প্রমুখ।